BDpress

মুগাবেকে আর ক্ষমতায় চায় না তার দল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

অ+ অ-
মুগাবেকে আর ক্ষমতায় চায় না তার দল
সাড়ে ৪ দশকের বেশি সময় ধরে ক্ষমতায় আকড়ে থাকা জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবের উপরে 'অনাস্থা' এনে তারই নেতৃত্বাধীন ক্ষমতাসীন দল জানু-পিএফ পার্টি তাকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানিয়েছে। একই সঙ্গে দেশটির উদারপন্থীরাও তাকে পদত্যাগের আহবান জানিয়েছে।

রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছেন বিবিসি।

দেশটির হেরাল্ড নিউজ পেপারের সংবাদ অনুযায়ী, চরম অস্থিতিশীলতার মধ্যে দেশটির ১০টি আঞ্চলিক শাখা থেকেই মুগাবেকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছে। এজন্য আজ শনিবার দেশটির রাজধানী হারারেতে একটি বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দিয়েছে। এই সমাবেশে সেনাবাহিনীর সমর্থনে রয়েছে বলে মনে করছে দেশটির গণমাধ্যমগুলো।

যদিও পদত্যাগ করবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছেন মুগাবে। সেনারা জিম্বাবুয়ের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর গৃহবন্দী প্রেসিডেন্টকে শুক্রবার প্রথমবারের মতো তাকে জনসম্মুখে দেয়া যায়। সে সময় তিনি একটি সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

১৯৮০ সাল থেকে জিম্বাবুয়ের ক্ষমতায় রয়েছেন ৯৩ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে। দেশটির রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, ভাইস প্রেসিডেন্ট এমারসন নানগাগওয়া ছিল তার প্রধান উত্তরসূরি।
তবে সম্প্রতি তাঁর জায়গায় ফার্স্ট লেডি গ্রেস মুগাবের নাম সামনে চলে আসে। এরই মধ্যে গত সপ্তাহে নানগাগওয়াকে বরখাস্ত করলে এই রাজনৈতিক সংকটের সূচনা হয়। 
বিডিপ্রেস/আলী


এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

মুগাবেকে আর ক্ষমতায় চায় না তার দল


মুগাবেকে আর ক্ষমতায় চায় না তার দল

রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছেন বিবিসি।

দেশটির হেরাল্ড নিউজ পেপারের সংবাদ অনুযায়ী, চরম অস্থিতিশীলতার মধ্যে দেশটির ১০টি আঞ্চলিক শাখা থেকেই মুগাবেকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছে। এজন্য আজ শনিবার দেশটির রাজধানী হারারেতে একটি বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দিয়েছে। এই সমাবেশে সেনাবাহিনীর সমর্থনে রয়েছে বলে মনে করছে দেশটির গণমাধ্যমগুলো।

যদিও পদত্যাগ করবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছেন মুগাবে। সেনারা জিম্বাবুয়ের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর গৃহবন্দী প্রেসিডেন্টকে শুক্রবার প্রথমবারের মতো তাকে জনসম্মুখে দেয়া যায়। সে সময় তিনি একটি সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

১৯৮০ সাল থেকে জিম্বাবুয়ের ক্ষমতায় রয়েছেন ৯৩ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে। দেশটির রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, ভাইস প্রেসিডেন্ট এমারসন নানগাগওয়া ছিল তার প্রধান উত্তরসূরি।
তবে সম্প্রতি তাঁর জায়গায় ফার্স্ট লেডি গ্রেস মুগাবের নাম সামনে চলে আসে। এরই মধ্যে গত সপ্তাহে নানগাগওয়াকে বরখাস্ত করলে এই রাজনৈতিক সংকটের সূচনা হয়। 
বিডিপ্রেস/আলী