BDpress

জেনে নিন কোন ব্যায়ামে কতটা ক্যালোরি ঝরে

বিডিপ্রেস ডেস্ক

অ+ অ-
জেনে নিন কোন ব্যায়ামে কতটা ক্যালোরি ঝরে
মেদ নিয়ে আজকাল কে না মাথা ঘামায়? ছিপছিপে শরীর যেমন চেহারাকে সুন্দর রাখে, তেমনই সুস্থ রাখে শরীর। শরীরের অতিরিক্ত চর্বি ঝরানো নিয়ে আমাদের কতই না চিন্তা! কঠিন শারীরিক কসরত, জিম কত কিছুই তো করেন। কিন্তু জানেন কি, কতক্ষণ কোন ব্যায়ামে কতটা করে ক্যালোরি পোড়ে আপনার? জেনে নিন সে সব হিসাব।

দৌড়: জিমে যদি না-ও যান, বাড়ির সামনে কোনো পার্ক বা মাঠ থাকলে চেষ্টা করুন সেখানে কয়েক পাক দৌড়ে আসতে। এমন গতিতে ছুটবেন, যাতে শরীরে ঘাম হয়। ছুটোছুটিতে পায়ের পেশী সচল থাকার সঙ্গে শরীরে রক্ত চলাচল ঠিক থাকে। মেদও ঝরে খুব সহজে। ২০ মিনিট দৌড়ালে প্রায় ২৫০-২৬০ ক্যালোরি পোড়ে।

সাঁতার: সবচেয়ে উপকারী ব্যায়ামের মধ্যে অন্যতম হলো সাঁতার। এই ব্যায়ামে শরীরের বেশির ভাগ পেশীর নড়াচড়া হয়। পিঠ, পেট ও কোমরের মেদ ঝরাতে এটির ভূমিকা অনেক। তাই সময় পেলেই নেমে পড়ুন জলে। আধ ঘণ্টার সাঁতারে প্রায় ৪০০ ক্যালোরি পোড়ে।

স্কিপিং: ছেলেবেলার অভ্যাস ঝালিয়ে নিতে পারেন। দিনে কিছু ক্ষণ সময় কাটান লাফদড়ির সঙ্গে। দম তো বাড়বেই, সঙ্গে লাফালাফিতে সরে যাবে অতিরিক্ত মেদও। ১৫ মিনিট স্কিপিংয়ে ঝরাতে পারেন মোটামুটি ৪০০ ক্যালোরি।

সাইকেল চালানো: এই কাজ কম-বেশি অনেকেই করেন। আপনি শুরু করুন রুটিন মেনে। দিনের মধ্যে কিছু ক্ষণ সাইকেলের প্যাডেলে চাপ দিন। জোরে সাইক্লিং করে ঘুরে আসুন খানিকটা। ১৫ মিনিট সাইকেল চালালে প্রায় ১৫০-২০০ ক্যালোরি ঝরাতে পারেন। কোমরের আকার ধরে রাখতে ও এই অঞ্চলের চর্বি ঝরাতে এর জুড়ি নেই।

জগিং: দৌড়নোর মাঝে মাঝেই গতি কমিয়ে জগিং শুরু করুন। মনে মনে হিসাব রাখুন কত পা জগিং করলেন। ধীরে ধীরে জগিংয়ের সময় বাড়ান। পা, কোমর, জঙ্ঘার মেদ কমাতে জগিং অন্যতম সেরা উপায়। ২০ মিনিট জগিংয়ে ঝরে প্রায় ২৫০ ক্যালোরি।

সিঁড়ি ভাঙুন: খুব দরকার না পড়লে এড়িয়ে চলুন লিফট। নিয়ম করে গতি বাড়ান সিঁড়ি ভাঙার। কখনো ধীর থেকে দ্রুত, কখনো বা দ্রুততর থেকে ধীর লয়ে ভাঙুন সিঁড়ি। প্রতি দশ মিনিটে শরীরের প্রায় ১৫০ ক্যালোরি ধরাতে পারবেন এই সহজ উপায়েই। এতে কুঁচকি, কোমর ও জঙ্ঘার পেশী পরিশ্রম করে। শরীরের অতিরিক্ত ওজন হ্রাস পায়।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

জেনে নিন কোন ব্যায়ামে কতটা ক্যালোরি ঝরে


জেনে নিন কোন ব্যায়ামে কতটা ক্যালোরি ঝরে

দৌড়: জিমে যদি না-ও যান, বাড়ির সামনে কোনো পার্ক বা মাঠ থাকলে চেষ্টা করুন সেখানে কয়েক পাক দৌড়ে আসতে। এমন গতিতে ছুটবেন, যাতে শরীরে ঘাম হয়। ছুটোছুটিতে পায়ের পেশী সচল থাকার সঙ্গে শরীরে রক্ত চলাচল ঠিক থাকে। মেদও ঝরে খুব সহজে। ২০ মিনিট দৌড়ালে প্রায় ২৫০-২৬০ ক্যালোরি পোড়ে।

সাঁতার: সবচেয়ে উপকারী ব্যায়ামের মধ্যে অন্যতম হলো সাঁতার। এই ব্যায়ামে শরীরের বেশির ভাগ পেশীর নড়াচড়া হয়। পিঠ, পেট ও কোমরের মেদ ঝরাতে এটির ভূমিকা অনেক। তাই সময় পেলেই নেমে পড়ুন জলে। আধ ঘণ্টার সাঁতারে প্রায় ৪০০ ক্যালোরি পোড়ে।

স্কিপিং: ছেলেবেলার অভ্যাস ঝালিয়ে নিতে পারেন। দিনে কিছু ক্ষণ সময় কাটান লাফদড়ির সঙ্গে। দম তো বাড়বেই, সঙ্গে লাফালাফিতে সরে যাবে অতিরিক্ত মেদও। ১৫ মিনিট স্কিপিংয়ে ঝরাতে পারেন মোটামুটি ৪০০ ক্যালোরি।

সাইকেল চালানো: এই কাজ কম-বেশি অনেকেই করেন। আপনি শুরু করুন রুটিন মেনে। দিনের মধ্যে কিছু ক্ষণ সাইকেলের প্যাডেলে চাপ দিন। জোরে সাইক্লিং করে ঘুরে আসুন খানিকটা। ১৫ মিনিট সাইকেল চালালে প্রায় ১৫০-২০০ ক্যালোরি ঝরাতে পারেন। কোমরের আকার ধরে রাখতে ও এই অঞ্চলের চর্বি ঝরাতে এর জুড়ি নেই।

জগিং: দৌড়নোর মাঝে মাঝেই গতি কমিয়ে জগিং শুরু করুন। মনে মনে হিসাব রাখুন কত পা জগিং করলেন। ধীরে ধীরে জগিংয়ের সময় বাড়ান। পা, কোমর, জঙ্ঘার মেদ কমাতে জগিং অন্যতম সেরা উপায়। ২০ মিনিট জগিংয়ে ঝরে প্রায় ২৫০ ক্যালোরি।

সিঁড়ি ভাঙুন: খুব দরকার না পড়লে এড়িয়ে চলুন লিফট। নিয়ম করে গতি বাড়ান সিঁড়ি ভাঙার। কখনো ধীর থেকে দ্রুত, কখনো বা দ্রুততর থেকে ধীর লয়ে ভাঙুন সিঁড়ি। প্রতি দশ মিনিটে শরীরের প্রায় ১৫০ ক্যালোরি ধরাতে পারবেন এই সহজ উপায়েই। এতে কুঁচকি, কোমর ও জঙ্ঘার পেশী পরিশ্রম করে। শরীরের অতিরিক্ত ওজন হ্রাস পায়।

বিডিপ্রেস/আরজে