BDpress

গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরাতে দুই বছর লাগবে : সাঈদ খোকন

নিজস্ব প্রতিবেদক

অ+ অ-
গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরাতে দুই বছর লাগবে : সাঈদ খোকন
জনসাধারণ সচেতন হলে আগামি দু’বছরের মধ্যে রাজধানীর গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরানো ও যানজট নিরসন সম্ভব হবে। দ্রুততম সময়ের মধ্যে রুট রেশনালাইজেশন এবং কোম্পানি গঠন কাজ শেষ করা হবে। বললেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহম্মাদ সাঈদ খোকন।

আজ(সোমবার) নগর ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

সাঈদ খোকন বলেন, রাজধানীতে একদিনে সাড়ে ৪ হাজার গণপরিবহন নামানো সম্ভব নয়। এক কোম্পানির পক্ষে এটা কেনাও সম্ভব নয়। এ জন্য কিছুটা সময় দরকার হবে। তবে রাজধানীর সড়ক নিরাপদ করতে, যানজট নিরসনে এবং গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে নাগরিক সচেতনতা প্রয়োজন।

তিনি বলেন, নিয়ম মেনে গাড়ি পার্কিং ও ওঠানামা করলে যানজট অনেকটা কমে আসবে। নাগরিকরা সচেতন হলে অনেক সড়ক দুর্ঘটনা কমে যাবে।

সাঈদ খোকন বলেন, এ মাসের শেষ দিকে আমরা কমিটির প্রথম বৈঠক করব। পুরনো বাস তুলে দিয়ে নতুন বাস নামাব। আমাদের লক্ষ্য যানজটমুক্ত শহর উপহার দেয়া।

রাজধানীর গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরানো ও যানজট নিরসনে গঠিত বাস রুট রেশনালাইজেশন বিষয়ে গঠিত কমিটির প্রজ্ঞাপন রোববার জারি করে সরকার। মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকনকে ১০ সদস্যের এ কমিটির আহ্বায়ক করা হয়।

মেয়র বলেন, কমিটি খুব দ্রুত কাজ শুরু করবে। আমি মনে করি, একাজ দুই বছরের মধ্যে শেষ হওয়া উচিত। আমরা সেভাবেই কাজ করব।

কমিটিতে ডিএনসিসির প্যানেল মেয়রকে যুগ্ম-আহ্বায়ক এবং বিআরটিএ, বিআরটিসি ও রাজউক চেয়ারম্যানসহ ডিএমপি কমিশনার, গণপরিবহন বিশেষজ্ঞ ড. এস এম সালেহ উদ্দিন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি ও ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের নির্বাহী পরিচালককে সদস্য করা হয়েছে।

কার্যক্রমের অগ্রগতি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্থানীয় সরকার বিভাগ এবং সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগকে নিয়মিতভাবে অবহিত করতে বলা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে কমিটির সদস্য সচিব খন্দকার রাকিবুর রহমান, ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলালসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিডিপ্রেস/আরজে

এ সম্পর্কিত অন্যান্য খবর

BDpress

গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরাতে দুই বছর লাগবে : সাঈদ খোকন


গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরাতে দুই বছর লাগবে : সাঈদ খোকন

আজ(সোমবার) নগর ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

সাঈদ খোকন বলেন, রাজধানীতে একদিনে সাড়ে ৪ হাজার গণপরিবহন নামানো সম্ভব নয়। এক কোম্পানির পক্ষে এটা কেনাও সম্ভব নয়। এ জন্য কিছুটা সময় দরকার হবে। তবে রাজধানীর সড়ক নিরাপদ করতে, যানজট নিরসনে এবং গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে নাগরিক সচেতনতা প্রয়োজন।

তিনি বলেন, নিয়ম মেনে গাড়ি পার্কিং ও ওঠানামা করলে যানজট অনেকটা কমে আসবে। নাগরিকরা সচেতন হলে অনেক সড়ক দুর্ঘটনা কমে যাবে।

সাঈদ খোকন বলেন, এ মাসের শেষ দিকে আমরা কমিটির প্রথম বৈঠক করব। পুরনো বাস তুলে দিয়ে নতুন বাস নামাব। আমাদের লক্ষ্য যানজটমুক্ত শহর উপহার দেয়া।

রাজধানীর গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরানো ও যানজট নিরসনে গঠিত বাস রুট রেশনালাইজেশন বিষয়ে গঠিত কমিটির প্রজ্ঞাপন রোববার জারি করে সরকার। মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকনকে ১০ সদস্যের এ কমিটির আহ্বায়ক করা হয়।

মেয়র বলেন, কমিটি খুব দ্রুত কাজ শুরু করবে। আমি মনে করি, একাজ দুই বছরের মধ্যে শেষ হওয়া উচিত। আমরা সেভাবেই কাজ করব।

কমিটিতে ডিএনসিসির প্যানেল মেয়রকে যুগ্ম-আহ্বায়ক এবং বিআরটিএ, বিআরটিসি ও রাজউক চেয়ারম্যানসহ ডিএমপি কমিশনার, গণপরিবহন বিশেষজ্ঞ ড. এস এম সালেহ উদ্দিন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি ও ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের নির্বাহী পরিচালককে সদস্য করা হয়েছে।

কার্যক্রমের অগ্রগতি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্থানীয় সরকার বিভাগ এবং সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগকে নিয়মিতভাবে অবহিত করতে বলা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে কমিটির সদস্য সচিব খন্দকার রাকিবুর রহমান, ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলালসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিডিপ্রেস/আরজে